1. admin@birbangla24.com : birbangla24.com :
  2. tipuisd@gmail.com : বীর বাংলা ডেক্সঃ : বীর বাংলা ডেক্সঃ
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৫:৪১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ঢাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ঈশ্বরদীর সুজন নিহত ঈশ্বরদী পৌরবাসীর উপর করের বোঝা চাপান হবে না– মেয়র ইছাহক আলী মালিথা ঈশ্বরদীর চরগড়গড়ির খাইরুল হত্যা মামলার প্রধান আসামী মজনু গ্রেফতার ঈশ্বরদী নাগরিক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদী জমজম হাসপাতালে ঝাড়ুদার দিয়ে প্রসব করানোর অভিযোগ | নবজাতকের মৃত্যু ঈশ্বরদীতে ছুরিকাঘাতে স্কুলছাত্র আহতের প্রতিবাদে সহপাঠীদের মানববন্ধন ঈশ্বরদীতে সহপাঠীর ছুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্র আহত ঈশ্বরদী ইপিজেড এলাকায় স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রী খুন | স্বামী আটক ঈশ্বরদীতে সাপের কামড়ে কৃষকের মৃত্যু আজ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৪৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী

মেয়ে ও কথিত জামাইয়ের বিরুদ্ধে মন্টু সরদারের সংবাদ সম্মেলন

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ মার্চ, ২০২৩
  • ২১৭ বার পড়া হয়েছে

 

বীর বাংলা নিউজঃ

মেয়ে সেতু ও তার কথিত স্বামীর খালেক মোল্লা বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে ঈশ্বরদী শহরের পিয়ারপুর নিজ বাড়ীতে শুক্রবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মোঃ মন্টু সরদার। সে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ঈশ্বরদী কার্যালয়ে ডিএস ম্যাশন পদে কর্মরত।
মন্টু সরদার সাংবাদিকদের জানান, আমার তিন মেয়ে ও এক ছেলে। বড় মেয়ে মোছাঃ সেতু খাতুন ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট শাহবাগ ঢাকায় অধ্যয়নরত ছিলেন। ঢাকায় পড়াশুনার সুবাদে সে ট্রেনে আসা-যাওয়া করত। ২০১৬ সালের কোন একদিন বাড়ি আসার সময় পাবনা দুবলিয়া চরপাড়া এলাকার মোঃ আব্দুল খালেক মোল্লার (৫৬) সাথে পরিচয় হয়। পাবনা বাড়ি হওয়ার কারণে সে তাকে মেয়ে বলে সম্বোধন করে ও ফোন নম্বর নেয়। নম্বর নিয়ে আমার মেয়ের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করত। তার কোন কন্যা সন্তান না থাকায় আমার মেয়েকে তার একমাত্র মেয়ে বলে পরিচয় করিয়ে দেয়। আমরা জানতে পারি সে একাধিক বিবাহ করেছে। তার দ্বিতীয় বউ ঢাকায় থাকায় এক সময় আমাদেরকে ঢাকায় নিয়ে যায়। তার ছেলের পড়াশুনার জন্য আমার মেয়েকে টিউশন টিচার হিসেবে রাখে। সুসম্পর্কের কারণে ২০১৮ সালে আমার ভাইরাকে সুইডেন নেওয়ার জন ৮ লক্ষ টাকা নেন চেকের মাধ্যমে। কিন্তু দীর্ঘদিন বিদেশ না নিয়ে বিভিন্ন কথা বলে এবং টাকা ফেরত না দিয়ে বলেন, কাজ প্রক্রিয়াধীন আছে। এক সময় সে টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করে, যার প্রেক্ষিতে আমরা একটা মামলা দায়ের করি। যার দরুন তার সাথে সম্পর্কের অবণতি হতে থাকে। সুসম্পর্কের অবণতি হওয়ার পর থেকে সে আমার মেয়ের বিয়ে ভেঙ্গে দেয় অনেক জায়গায় এবং আমাদের সবার সাথে খারাপ ব্যবহার করে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় এবং আমার মেয়েকে নিয়ে অন পন্থা অবলম্বন করেন। দূরে থাকার কারণে আমরা বিষয়টি বুঝতে পারিনি। করোনাকালীন সময়ে আমার স্ত্রী ঢাকায় মেয়ের কাছে গিয়ে কিছুদিন থাকেন। ঢাকায় গিয়ে মেয়ের মা বুঝতে পারেন আমার বড় মেয়ে মোছাঃ সেতুর সঙ্গে মোঃ খালেক মোল্লার যোগাযোগ রয়েছে। তখন মেয়ের মা আব্দুল খালেক মোল্লাকে মেয়ের সাথে যোগাযোগ করতে নিষেধ করলে সে জানায়, আমার মেয়েকে সে বিয়ে করেছে। যেখানে বাবা পরিচয় লাগবে সেখানে বাবা, যেখানে স্বামী পরিচয় লাগবে সেখানে স্বামী পরিচয় দিবে। কিন্তু মেয়েকে জিজ্ঞেস করলে সে অস্বীকার করে এবং আমাদের বুঝতে বাকী থাকে না যে তাদের মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক আছে।
এমতাবস্থায়, আমরা মেয়েকে তার কাছ থেকে সরিয়ে রাখার জন্য বাড়িতে নিয়ে আসি পারিবারিকভাবে শাসন করি। এতে আমার মেয়ে আমাদের সাথে অস্বাভাবিক আচরণ করতে থাকে এবং অবৈধ সম্পর্কে জড়িত ব্যক্তি আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে। আমার মেয়ের অস্বাভাবিক আচরণ দেখে আমরা তাকে মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করি। প্রায় ২ মাস থাকার পর তার আচরণ স্বাভাবিক মনেহলে মানসিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে বাড়িতে আনার পথে সে গাড়ী থেকে নেমে দৌড়ে পালিয়ে যায় এবং আবার তার কাছে চলে যান।
এত কিছু করার পরেও মেয়েকে তার কাছ থেকে সরিয়ে রাখতে পারি নাই। পরবর্তীতে আমাকে হেনস্তা করার জন্য আমার মেয়ে এবং মোঃ খালেক মোল্লা ২ এপ্রিল ২০২২ তারিখে বিবাহ করেন এবং আমাদের নামে বিভিন্ন মামলা দিতে থাকেন। বর্তমানে তিনি আমাদের নামে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। অনেক ঘটনা ঘটিয়ে সে আমার মেয়েকে জিম্মি করছে এবং মেয়েকে দিয়ে বিভিন্ন মামলা করিয়ে আমাদেরকে হুমকি ধামকি দিচ্ছে।

আমি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের একজন কর্মচারী। বর্তমানে ঈশ্বরদী উপজেলা পাবনা অফিসে কর্মরত। আমার সাথে আমার মেয়ের সম্পর্কের অবণতি হওয়াতে এবং সে আমাকে চাকুরিতচ্যুত করার জন্য আমার অফিসের মাধ্যমে যেন চাপ আসে সেজন্য আমার মেয়ে ও তার কথিত স্বামী মোঃ খালেক মোল্লা আমাকে ও প্রকৌশলী জামানুর রহমানকে জড়িয়ে যে সংবাদ  প্রকাশ করেন যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমি এর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত